Miscellaneous News

চিরকুটে জীবনের সব কষ্টের কথা লিখে ট্রেনের নিচে প্রাণ দিলেন যুবক

চিরকুটে জীবনের সব কষ্টের কথা লিখে ট্রেনের নিচে প্রাণ দিলেন এমরুল হাসান নামে এক যুবক। বুধবার সকালে রাজশাহী নগরীর বিলশিমলা বন্ধগেট এলাকা থেকে তার খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধার করে রেলওয়ে পুলিশ।

এমরুল হাসান চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বোয়ালিয়া ইউপির ঘাটনগর ফিটু মিয়ার ছেলে।

এমরুলের পকেট থেকে সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। সুইসাইড নোটে এমরুল লিখেছেন, জালাল, কালাম ও তাদের ছেলে রানা আমার হাত ও পা ভেঙেছে। এই কষ্টে আমি জ্বলে পুড়ে যাচ্ছিলাম।

এই চিরকুটে তিনি উল্লেখ করেছেন কে তার কাছে কত টাকা পাবে। মৃত্যুর পর কোন মোবাইল নম্বরে ফোন করে খবর দেয়া যাবে সে কথাও চিরকুটে লেখা আছে। তার মরদেহ কোন কবরস্থানে দাফন করা হবে সেটিও লেখা হয়েছে।

দুটি চিরকুটের একটিতে এমরুল লিখেছেন, আমার জীবনে আমার আপনজন আমার বেটি (মেয়ে) ও স্ত্রী। তিনজন আমার প্রিয়। আমাকে আর ভালো লাগছে না। আমার লেখা কাগজ দুইটা আমার স্ত্রীকে দেবেন। কাগজের ফটোকপি পুলিশকে দেবেন। কাগজের মেইন কপি দুইটা আমার স্ত্রীকে দেবেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে এমরুল ক্র্যাচে ভর দিয়ে রেললাইনের পাশ ধরে হাঁটছিলেন। ওই সময় রাজশাহী থেকে রহনপুরগামী কমিউটার ট্রেনটি ওই এলাকা পার হচ্চিলো।

ট্রেনটি খুব কাছে চলে এলেই এমরুল রেললাইনে মাথা দেন। এতে তার মাথা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। রেললাইনের পাশে পড়ে থাকে এমরুলের দেহ আর তার ক্র্যাচ।

নিহত এমরুলের স্ত্রী আয়েশা বেগম জানান, গত সোমবার চিকিৎসার জন্য তারা রাজশাহী এসেছেন। নগরীর তেরোখাদিয়া এলাকায় তারা তার বোনের বাড়িতে ওঠেন। সকালে চা পান করতে বের হচ্ছেন জানিয়ে বাড়ি ছাড়েন এমরুল। এরপর তিনি রেললাইনে মাথা পেতে আত্মহত্যা করেন। পরে পুলিশ চিরকুটে থাকা তার বোনের নম্বরে ফোন করে বিষয়টি অবহিত করে।

আয়েশা জানান, প্রায় পাঁচ মাস আগে জালাল ও কালামরা তাদের জমি দখল করে বাড়ি করেছেন। এমরুল বাধা দিতে গেলে পিটিয়ে তার হাত ও পা ভেঙে দেয়া হয়। তার স্বামীকে ক্র্যাচে ভর দিয়ে চলতে হত।

জমি দখলের বিষয়ে মামলা করলেও হাত-পা ভাঙার কারণে দৌড়াদৌড়ি করতে পারতেন না তার স্বামী। সে কারণে জমিও উদ্ধার করতে পারেননি। ক্ষোভে তার স্বামী আত্মহত্যা করেছেন।

রাজশাহী রেলওয়ে থানার ওসি শাহ কামাল জানান, এমরুলের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ নিয়ে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

পাঠকের মতামত:
Show More
Back to top button