International News

নিউ ইয়র্কে সংক্রমণ বাড়ায় ফের বন্ধ হচ্ছে স্কুল-রেঁস্তোরা

নিউ ইয়র্কে সংক্রমণ – যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আবার বেড়ে যাওয়ায় শহরের ৯টি এলাকায় স্কুল, রেঁস্তোরা ও জরুরি নয় এমন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নগর কর্তৃপক্ষ। বুধবার (৭ অক্টোবর) থেকে তা কার্যকর হবে বলে জানিয়েছেন নগরীর মেয়র বিল ডি ব্লাজিও। গত রোবাবার নগরীর সিটি হলে মেয়র বিল ডি ব্লাজিও এসব কথা বলেছেন। তবে বিষয়টি বর্তমানে রাজ্য সরকারের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।মার্কিন সংবাদমাধ্যম বাংলা প্রেস এ খবর জানিয়েছে।

মেয়র বলেন, নিউ ইয়র্কের ব্রুকলিন ও কুইন্সে আবার করোনার সংক্রমণ বাড়ছে। করোনা প্রতিরোধে দীর্ঘ দিন এসব প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পর আবার খোলা শুরু করেছে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে ৭ অক্টোবর থেকে তা আবার বন্ধ করে দিতে হবে। বিষয়টি বর্তমানে রাজ্য সরকারের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। আবার বড় ধরনের কিছু ঘটনার আগেই প্রস্তুতি নিতে হবে।

স্কুল, রেস্তোরাঁ ও জরুরি নয় এমন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আবার বন্ধের বিষয়টি রাজ্য সরকার অনুমোদন দিলে এসব এলাকার শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস করতে হবে বিল ডি ব্লাজিও বলেন, স্কুল, রেঁস্তোরা ও জরুরি নয় এমন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আবার বন্ধ করে দিতে আপাতত নগরীর নয়টি এলাকা চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে—ব্রুকলিনের বেনসনহার্স্ট, বরো পার্ক, গ্রেভসেন্ড, মিডউড ও শেপসহেড বে এবং কুইন্সের ফার রকঅ্যাওয়ে ও কিউ গার্ডেনস। এসব এলাকায় প্রায় পাঁচ লাখ মানুষের বাস।

কর্তৃপক্ষ বলছে, স্কুল, রেঁস্তোরা ও জরুরি নয় এমন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আবার বন্ধের বিষয়টি রাজ্য সরকার অনুমোদন দিলে এসব এলাকার শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস করতে হবে। এতে অন্তত ১০০টি সরকারি ও ২০০টি বেসরকারি স্কুলের শিক্ষার্থীদের অনলাইনেই ক্লাস করতে হবে।

ব্লাজিও আরও বলেন, নগরীর ওই নয়টি এলাকার রেঁস্তোরায় আউটডোর ও ইনডোর ডাইনিং বন্ধ থাকবে। তবে প্রার্থনালয় খোলা থাকবে। নগরীর নয়টি জিপ কোড এলাকায় গত সাত দিন ধরে করোনা সংক্রমণের হার ৩ শতাংশের বেশি। এ ধরনের আরও ১১টি এলাকা পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। ৩ অক্টোবর পর্যন্ত গত সাত দিনে পুরো নগরীতে করোনা সংক্রমণের হার ১ দশমিক ৭২ শতাংশ।

নিউ ইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো ৪ অক্টোবর বলেছেন, স্থানীয় সরকারের আইন প্রয়োগের আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। যদি না করে তাহলে স্থানীয় সরকার আইন লঙ্ঘন করবে।

অ্যান্ড্রু কুমো বলেন, যদি স্থানীয় সরকার পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেরে সবকিছু বন্ধ করে দিতে চায়, তাহলে রাজ্য প্রশাসন তাই করবে।

তবে স্কুল, রেঁস্তোরা ও জরুরি নয় এমন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আবার বন্ধে নগরীর মেয়র বিল ডি ব্লাজিওর প্রস্তাবের বিষয়ে গভর্নরের অফিস থেকে তাৎক্ষণিক কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

পাঠকের মতামত:
Show More
Back to top button